০১:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

একই স্থানে যুবলীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি, কবিরহাটে ১৪৪ ধারা জারি

Reporter Name
  • No Update : ১২:২৬:০৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩
  • / 1054

একই স্থানে যুবলীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ আহ্বান কেন্দ্র করে নোয়াখালীর কবিরহাট পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে উপজেলা প্রশাসন। পৌর যুবলীগের সভাপতি আবুল বাশার ও কবিরহাট উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু জাফর (আবির) পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির ডাক দেন।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারার আদেশ জারি করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফাতিমা সুলতানা। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, দুই পক্ষ কবিরহাটে একই স্থানে পাল্টাপাল্টি সমাবেশ ডাকায় সমগ্র কবিরহাট পৌরসভা এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এ সময় সব ধরনের সভা–সমাবেশ ও মিছিল নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সম্প্রতি কবিরহাট উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন যুবলীগের কমিটি গঠন নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হকের সঙ্গে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু জাফর ও সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামের বিরোধ দেখা দেয়। ওই বিরোধের জের ধরে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে ২০ অক্টোবর সন্ধ্যায় উপজেলার নরোত্তমপুর, ঘোষবাগ ও ধানসিঁড়ি ইউনিয়ন শাখার নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটি প্রত্যাখ্যান করে ঝাড়ুমিছিল ও সমাবেশ করেন পদবঞ্চিত নেতা–কর্মীরা।

দলীয় নেতা–কর্মীদের একাংশের অভিযোগ, ওই ঝাড়ুমিছিলের নেপথ্যে পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হকের হাত রয়েছে। এ নিয়ে তাঁর সঙ্গে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও সম্পাদকের দূরত্ব বাড়তে থাকে।
এর মধ্যে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আজ বিকেলে কবিরহাট বাজারের বঙ্গবন্ধু চত্বরে একই সময়ে জহিরুলের অনুসারী কবিরহাট পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি আবুল বাশার এবং উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবিরের অনুসারীরা তারুণ্যের জয়যাত্রার সমাবেশের আহ্বান করেন। এ নিয়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কা দেখা দিলে উপজেলা প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করে।

কবিরহাট উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু জাফরের অভিযোগ, সাত দিন আগে থেকে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে তারুণ্যের জয়যাত্রা সমাবেশের আহ্বান করে উপজেলা যুবলীগ। গতকাল বুধবার মেয়র জহিরুল হকের ইন্ধনে আকস্মিক একই স্থানে সমাবেশের ডাক দেন তাঁর (জহিরুল) অনুসারী কবিরহাট পৌরসভা যুবলীগ সভাপতি বাশার। এ পরিস্থিতিতে তাঁরা এখন অন্য স্থানে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ নেতা জহিরুল হক প্রথম আলোকে বলেন, উপজেলা যুবলীগ ও পৌর যুবলীগ সবাই তাঁর উপজেলা আওয়ামী লীগের অধীন। সুতরাং কারও পক্ষ নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে উভয় পক্ষ তারুণ্যের জয়যাত্রা নামে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস–নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে সমাবেশ আহ্বান করেছে। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কিছুটা উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এ কারণে তিনি প্রশাসনকে অনুরোধ করে ১৪৪ ধারা জারি করিয়েছেন।

একই স্থানে যুবলীগের দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি সভা ডাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কা থাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে বলে জানান কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, কবিরহাট পৌরসভা এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Tag : Bangladesh Diplomat, bd diplomat

Please Share This Post in Your Social Media

One thought on “একই স্থানে যুবলীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি, কবিরহাটে ১৪৪ ধারা জারি

Write Your Comment

About Author Information

Bangladesh Diplomat | বাংলাদেশ ডিপ্লোম্যাট

Bangladesh Diplomat | বাংলাদেশ ডিপ্লোম্যাট | A Popular News Portal Of Bangladesh.

একই স্থানে যুবলীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি, কবিরহাটে ১৪৪ ধারা জারি

No Update : ১২:২৬:০৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩

একই স্থানে যুবলীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ আহ্বান কেন্দ্র করে নোয়াখালীর কবিরহাট পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে উপজেলা প্রশাসন। পৌর যুবলীগের সভাপতি আবুল বাশার ও কবিরহাট উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু জাফর (আবির) পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির ডাক দেন।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারার আদেশ জারি করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফাতিমা সুলতানা। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, দুই পক্ষ কবিরহাটে একই স্থানে পাল্টাপাল্টি সমাবেশ ডাকায় সমগ্র কবিরহাট পৌরসভা এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এ সময় সব ধরনের সভা–সমাবেশ ও মিছিল নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সম্প্রতি কবিরহাট উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন যুবলীগের কমিটি গঠন নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হকের সঙ্গে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু জাফর ও সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামের বিরোধ দেখা দেয়। ওই বিরোধের জের ধরে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে ২০ অক্টোবর সন্ধ্যায় উপজেলার নরোত্তমপুর, ঘোষবাগ ও ধানসিঁড়ি ইউনিয়ন শাখার নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটি প্রত্যাখ্যান করে ঝাড়ুমিছিল ও সমাবেশ করেন পদবঞ্চিত নেতা–কর্মীরা।

দলীয় নেতা–কর্মীদের একাংশের অভিযোগ, ওই ঝাড়ুমিছিলের নেপথ্যে পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হকের হাত রয়েছে। এ নিয়ে তাঁর সঙ্গে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও সম্পাদকের দূরত্ব বাড়তে থাকে।
এর মধ্যে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আজ বিকেলে কবিরহাট বাজারের বঙ্গবন্ধু চত্বরে একই সময়ে জহিরুলের অনুসারী কবিরহাট পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি আবুল বাশার এবং উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবিরের অনুসারীরা তারুণ্যের জয়যাত্রার সমাবেশের আহ্বান করেন। এ নিয়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কা দেখা দিলে উপজেলা প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করে।

কবিরহাট উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু জাফরের অভিযোগ, সাত দিন আগে থেকে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে তারুণ্যের জয়যাত্রা সমাবেশের আহ্বান করে উপজেলা যুবলীগ। গতকাল বুধবার মেয়র জহিরুল হকের ইন্ধনে আকস্মিক একই স্থানে সমাবেশের ডাক দেন তাঁর (জহিরুল) অনুসারী কবিরহাট পৌরসভা যুবলীগ সভাপতি বাশার। এ পরিস্থিতিতে তাঁরা এখন অন্য স্থানে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ নেতা জহিরুল হক প্রথম আলোকে বলেন, উপজেলা যুবলীগ ও পৌর যুবলীগ সবাই তাঁর উপজেলা আওয়ামী লীগের অধীন। সুতরাং কারও পক্ষ নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে উভয় পক্ষ তারুণ্যের জয়যাত্রা নামে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস–নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে সমাবেশ আহ্বান করেছে। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কিছুটা উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এ কারণে তিনি প্রশাসনকে অনুরোধ করে ১৪৪ ধারা জারি করিয়েছেন।

একই স্থানে যুবলীগের দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি সভা ডাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কা থাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে বলে জানান কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, কবিরহাট পৌরসভা এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।