১২:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শেষ হলো একাদশ জাতীয় সংসদের শেষ অধিবেশন

Reporter Name
  • No Update : ১২:১৬:২৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩
  • / 1069

একাদশ জাতীয় সংসদের ২৫তম অধিবেশন আজ বৃহস্পতিবার শেষ হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে চলতি সংসদের অধিবেশনের কার্যক্রম শেষ হলো।

২০১৯ সালের ৩০ জানুয়ারি যাত্রা শুরু করে একাদশ জাতীয় সংসদ। চলতি সংসদের মেয়াদ আছে ২৯ জানুয়ারি পর্যন্ত। সংসদের মেয়াদ পূর্তির আগের ৯০ দিনের মধ্যে পরবর্তী সংসদ নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা আছে। সে হিসাবে ১ নভেম্বর থেকে নির্বাচনকালীন সময় শুরু হয়েছে।

নির্বাচনকালীন সময়ে সংসদের অধিবেশন ডাকার বাধ্যবাধকতা নেই। আবার অধিবেশন ডাকার ক্ষেত্রেও কোনো বাধা নেই। তবে চলতি সংসদের আর কোনো অধিবেশন বসার সম্ভাবনা নেই।

এই সংসদে এখন পর্যন্ত ৩১ জন সংসদ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে সংসদ সদস্যের মৃত্যুর কারণে শূন্য হওয়া তিনটি আসনে এখনো ভোট গ্রহণ হয়নি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ ও লক্ষ্মীপুর-৩ আসনে আগামী ৫ নভেম্বর এবং পটুয়াখালী–১ আসনে আগামী ২৭ নভেম্বর উপনির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। এই তিন আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা একাদশ সংসদের সদস্য নির্বাচিত হলেও তাঁরা কোনো অধিবেশনে যোগ দেওয়ার সুযোগ পাবেন না।

সংসদ সচিবালয় সূত্র জানায়, একাদশ জাতীয় সংসদে ২৫টি অধিবেশনে মোট কার্যদিবস ছিল ২৭২ দিন। বিল পাস হয়েছে ১৬৫টি। একাদশ সংসদে প্রধানমন্ত্রীর উত্তর দেওয়ার জন্য মোট প্রশ্ন পাওয়া যায় ১ হাজার ৩৩৬টি। এর মধ্যে প্রধানমন্ত্রী জবাব দিয়েছেন ৫৬৬টি প্রশ্নের। অন্য মন্ত্রীদের জন্য প্রশ্ন পাওয়া যায় ৩০ হাজার ৬৪১টি। এর মধ্যে মন্ত্রীরা জবাব দিয়েছেন ১৭ হাজার ৭৬২টি প্রশ্নের।

শেষ অধিবেশনে বিল পাসের রেকর্ড

গত ২২ অক্টোবর একাদশ সংসদের ২৫তম অধিবেশন শুরু হয়েছিল। শেষ হলো আজ। মোট ৯ কার্যদিবসের অধিবেশন হলেও প্রথম দিনের বৈঠক মুলতবি করা হয়েছিল। সে হিসাবে এই অধিবেশনের মাত্র ৮ দিনে ২৫টি বিল পাস হয়।

এর মধ্যে আজ অধিবেশনের শেষ দিনেই সাতটি বিল পাস হয়। এগুলো হলো লক্ষ্মীপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বিল, সাতক্ষীরা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বিল, বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শিক্ষা বিল, বাংলাদেশ শ্রম (সংশোধন) বিল, পরিত্যক্ত বাড়ি (সম্পূরক বিধানাবলি) বিল, আনসার ব্যাটালিয়ন বিল ও বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ তহবিল বিল।

মেয়াদের শেষ সময়ে এসে জাতীয় সংসদে তড়িঘড়ি করে বিল পাসের সমালোচনা করে গত সোমবার সংসদে বক্তব্য দিয়েছিলেন গণফোরামের সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান। সরকার কি নিজের ওপর আস্থা হারিয়েছে—এমন প্রশ্ন রেখে তিনি বলেছিলেন, সরকার অনেকগুলো পুরানো আইনকে যুগোপযোগী করার চেষ্টা করছে, এটি ইতিবাচক। তবে সরকারের শেষ সময়ে এসে কোন আইন, কখন আসছে, কখন পাস হচ্ছে তা বলা মুশকিল।

এর আগে গত দশম সংসদের শেষ অধিবেশনে ১৯টি বিল পাস হয়েছিল।
সংসদ অধিবেশনের সংখ্যার দিক থেকেও চলতি সংসদ রেকর্ড করেছে।

Tag : Bangladesh Diplomat, bd diplomat

Please Share This Post in Your Social Media

Write Your Comment

About Author Information

Bangladesh Diplomat | বাংলাদেশ ডিপ্লোম্যাট

Bangladesh Diplomat | বাংলাদেশ ডিপ্লোম্যাট | A Popular News Portal Of Bangladesh.

শেষ হলো একাদশ জাতীয় সংসদের শেষ অধিবেশন

No Update : ১২:১৬:২৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩

একাদশ জাতীয় সংসদের ২৫তম অধিবেশন আজ বৃহস্পতিবার শেষ হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে চলতি সংসদের অধিবেশনের কার্যক্রম শেষ হলো।

২০১৯ সালের ৩০ জানুয়ারি যাত্রা শুরু করে একাদশ জাতীয় সংসদ। চলতি সংসদের মেয়াদ আছে ২৯ জানুয়ারি পর্যন্ত। সংসদের মেয়াদ পূর্তির আগের ৯০ দিনের মধ্যে পরবর্তী সংসদ নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা আছে। সে হিসাবে ১ নভেম্বর থেকে নির্বাচনকালীন সময় শুরু হয়েছে।

নির্বাচনকালীন সময়ে সংসদের অধিবেশন ডাকার বাধ্যবাধকতা নেই। আবার অধিবেশন ডাকার ক্ষেত্রেও কোনো বাধা নেই। তবে চলতি সংসদের আর কোনো অধিবেশন বসার সম্ভাবনা নেই।

এই সংসদে এখন পর্যন্ত ৩১ জন সংসদ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে সংসদ সদস্যের মৃত্যুর কারণে শূন্য হওয়া তিনটি আসনে এখনো ভোট গ্রহণ হয়নি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ ও লক্ষ্মীপুর-৩ আসনে আগামী ৫ নভেম্বর এবং পটুয়াখালী–১ আসনে আগামী ২৭ নভেম্বর উপনির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। এই তিন আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা একাদশ সংসদের সদস্য নির্বাচিত হলেও তাঁরা কোনো অধিবেশনে যোগ দেওয়ার সুযোগ পাবেন না।

সংসদ সচিবালয় সূত্র জানায়, একাদশ জাতীয় সংসদে ২৫টি অধিবেশনে মোট কার্যদিবস ছিল ২৭২ দিন। বিল পাস হয়েছে ১৬৫টি। একাদশ সংসদে প্রধানমন্ত্রীর উত্তর দেওয়ার জন্য মোট প্রশ্ন পাওয়া যায় ১ হাজার ৩৩৬টি। এর মধ্যে প্রধানমন্ত্রী জবাব দিয়েছেন ৫৬৬টি প্রশ্নের। অন্য মন্ত্রীদের জন্য প্রশ্ন পাওয়া যায় ৩০ হাজার ৬৪১টি। এর মধ্যে মন্ত্রীরা জবাব দিয়েছেন ১৭ হাজার ৭৬২টি প্রশ্নের।

শেষ অধিবেশনে বিল পাসের রেকর্ড

গত ২২ অক্টোবর একাদশ সংসদের ২৫তম অধিবেশন শুরু হয়েছিল। শেষ হলো আজ। মোট ৯ কার্যদিবসের অধিবেশন হলেও প্রথম দিনের বৈঠক মুলতবি করা হয়েছিল। সে হিসাবে এই অধিবেশনের মাত্র ৮ দিনে ২৫টি বিল পাস হয়।

এর মধ্যে আজ অধিবেশনের শেষ দিনেই সাতটি বিল পাস হয়। এগুলো হলো লক্ষ্মীপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বিল, সাতক্ষীরা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বিল, বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শিক্ষা বিল, বাংলাদেশ শ্রম (সংশোধন) বিল, পরিত্যক্ত বাড়ি (সম্পূরক বিধানাবলি) বিল, আনসার ব্যাটালিয়ন বিল ও বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ তহবিল বিল।

মেয়াদের শেষ সময়ে এসে জাতীয় সংসদে তড়িঘড়ি করে বিল পাসের সমালোচনা করে গত সোমবার সংসদে বক্তব্য দিয়েছিলেন গণফোরামের সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান। সরকার কি নিজের ওপর আস্থা হারিয়েছে—এমন প্রশ্ন রেখে তিনি বলেছিলেন, সরকার অনেকগুলো পুরানো আইনকে যুগোপযোগী করার চেষ্টা করছে, এটি ইতিবাচক। তবে সরকারের শেষ সময়ে এসে কোন আইন, কখন আসছে, কখন পাস হচ্ছে তা বলা মুশকিল।

এর আগে গত দশম সংসদের শেষ অধিবেশনে ১৯টি বিল পাস হয়েছিল।
সংসদ অধিবেশনের সংখ্যার দিক থেকেও চলতি সংসদ রেকর্ড করেছে।