০১:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পদ্মায় পররাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে পিটার হাসের দেড় ঘণ্টার বৈঠক

Reporter Name
  • No Update : ১২:১০:২৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩
  • / 1062

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস আজ বৃহস্পতিবার সকালে পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় অনুষ্ঠিত পূর্বনির্ধারিত বৈঠকটি প্রায় দেড় ঘণ্টা স্থায়ী হয়।

কূটনৈতিক একাধিক সূত্র বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করলেও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস বৈঠকের আলোচনার বিষয়বস্তু সম্পর্কে কিছু জানায়নি।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো আভাস দিয়েছে, পররাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের আলোচনায় দুই দেশের সম্পর্কের নানা বিষয় উঠে এসেছে। এর মধ্যে সমসাময়িক বিষয় হিসেবে বাংলাদেশের উত্তপ্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং আগামী নির্বাচনের বিষয়টি সংগত কারণেই তাঁদের আলোচনায় আসার কথা।

বছর দেড়েক ধরেই বাংলাদেশের আগামী জাতীয় নির্বাচন যাতে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়, সে বিষয়টি জোর দিয়ে বলছে যুক্তরাষ্ট্র। চলতি বছর দুই দেশের কর্মকর্তাদের মধ্যে ঢাকা ও ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত সব বৈঠকের আলোচনার অন্যতম বিষয় আগামী নির্বাচন। সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাষ্ট্র অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন এবং সংলাপের বিষয়টি সামনে আনছে। বিশেষ করে ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট (আইআরআই) এবং ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ইনস্টিটিউটের (এনডিআই) সমন্বয়ে গড়া যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক্‌–নির্বাচন পর্যবেক্ষক দল পাঁচ দফা সুপারিশ দেওয়ার পর থেকে এটা বেড়েছে। তখন থেকে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের স্বার্থে সংলাপের আহ্বান জানাচ্ছে। পাশাপাশি এ সময় থেকেই ‘অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন’ প্রসঙ্গটি বলতে শুরু করেছে।

এর মধ্যে গত ২৯ অক্টোবর ওয়াশিংটনে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরে দেশটির বেসামরিক নিরাপত্তা, গণতন্ত্র ও মানবাধিকারবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি আজরা জেয়ার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানের বৈঠক হয়েছে। ওই বৈঠকে আজরা জেয়া বলেছেন, বাংলাদেশে একটি বিশ্বাসযোগ্য, অংশগ্রহণমূলক ও সহিংসতামুক্ত জাতীয় নির্বাচন নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক্‌-নির্বাচন পর্যবেক্ষক দলের পাঁচ দফা সুপারিশকে সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র।

২৮ অক্টোবর বিএনপির মহাসমাবেশ ঘিরে সংঘাতের পরিপ্রেক্ষিতে দেশের উত্তপ্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতির অবসান এবং একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের গ্রহণযোগ্য পথ খুঁজতে প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে সংলাপ চায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

গত মঙ্গলবার নির্বাচন ভবনে গিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়ালের সঙ্গে বৈঠক করেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস। বৈঠক শেষে তিনি রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে শর্তহীন সংলাপ আয়োজনের আহ্বান জানান।

Tag : Bangladesh Diplomat, bd diplomat

Please Share This Post in Your Social Media

Write Your Comment

About Author Information

Bangladesh Diplomat | বাংলাদেশ ডিপ্লোম্যাট

Bangladesh Diplomat | বাংলাদেশ ডিপ্লোম্যাট | A Popular News Portal Of Bangladesh.

পদ্মায় পররাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে পিটার হাসের দেড় ঘণ্টার বৈঠক

No Update : ১২:১০:২৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস আজ বৃহস্পতিবার সকালে পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় অনুষ্ঠিত পূর্বনির্ধারিত বৈঠকটি প্রায় দেড় ঘণ্টা স্থায়ী হয়।

কূটনৈতিক একাধিক সূত্র বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করলেও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস বৈঠকের আলোচনার বিষয়বস্তু সম্পর্কে কিছু জানায়নি।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো আভাস দিয়েছে, পররাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের আলোচনায় দুই দেশের সম্পর্কের নানা বিষয় উঠে এসেছে। এর মধ্যে সমসাময়িক বিষয় হিসেবে বাংলাদেশের উত্তপ্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং আগামী নির্বাচনের বিষয়টি সংগত কারণেই তাঁদের আলোচনায় আসার কথা।

বছর দেড়েক ধরেই বাংলাদেশের আগামী জাতীয় নির্বাচন যাতে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়, সে বিষয়টি জোর দিয়ে বলছে যুক্তরাষ্ট্র। চলতি বছর দুই দেশের কর্মকর্তাদের মধ্যে ঢাকা ও ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত সব বৈঠকের আলোচনার অন্যতম বিষয় আগামী নির্বাচন। সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাষ্ট্র অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন এবং সংলাপের বিষয়টি সামনে আনছে। বিশেষ করে ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট (আইআরআই) এবং ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ইনস্টিটিউটের (এনডিআই) সমন্বয়ে গড়া যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক্‌–নির্বাচন পর্যবেক্ষক দল পাঁচ দফা সুপারিশ দেওয়ার পর থেকে এটা বেড়েছে। তখন থেকে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের স্বার্থে সংলাপের আহ্বান জানাচ্ছে। পাশাপাশি এ সময় থেকেই ‘অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন’ প্রসঙ্গটি বলতে শুরু করেছে।

এর মধ্যে গত ২৯ অক্টোবর ওয়াশিংটনে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরে দেশটির বেসামরিক নিরাপত্তা, গণতন্ত্র ও মানবাধিকারবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি আজরা জেয়ার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানের বৈঠক হয়েছে। ওই বৈঠকে আজরা জেয়া বলেছেন, বাংলাদেশে একটি বিশ্বাসযোগ্য, অংশগ্রহণমূলক ও সহিংসতামুক্ত জাতীয় নির্বাচন নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক্‌-নির্বাচন পর্যবেক্ষক দলের পাঁচ দফা সুপারিশকে সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র।

২৮ অক্টোবর বিএনপির মহাসমাবেশ ঘিরে সংঘাতের পরিপ্রেক্ষিতে দেশের উত্তপ্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতির অবসান এবং একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের গ্রহণযোগ্য পথ খুঁজতে প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে সংলাপ চায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

গত মঙ্গলবার নির্বাচন ভবনে গিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়ালের সঙ্গে বৈঠক করেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস। বৈঠক শেষে তিনি রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে শর্তহীন সংলাপ আয়োজনের আহ্বান জানান।